icon

খেয়াং রূপকথা: চোংক্লং পোচোং গুম খুই (তিন যুবকের গল্প)

Jumjournal

Last updated Jan 20th, 2020 icon 748

একদিন এক যুবক (চোংক্লং) এক গ্রামে বেড়াতে গেল। যাবার পথে (এচেতলমা) দুই যুবক জিজ্ঞাসা করল, হে যুবক, তুমি মুরগী নাকি মোরগ?

তখন যুবকটি মনে মনে চিন্তা করল, যেহেতু আমি পুরুষ আমি মোরগ (আলুইপ)। যুবকটি গ্রামে ঢুকে এক বৃদ্ধ মহিলার বাড়ীতে রাত্রি যাপন করার জন্য বিশ্রাম নিল।

 যুবকটি বৃদ্ধ মহিলাটিকে জিজ্ঞাসা করল, নানী নানী (বেও বেও), গ্রামে আসার পথে। আমাকে দুই যুবক জিজ্ঞাসা করল, তুমি মুরগী নাকি মোরগ।

আমি যেহেতু পুরুষ আমি মোরগ বলেছি। বৃদ্ধ মহিলাটি জানে যে, সেই দুই যুবক হচ্ছে তার শত্রু (আলানসু)। তখন বৃদ্ধ মহিলাটি যুবকটিকে রক্ষা করার জন্য নিজের পরার কাপড় দিয়ে বিছানা করে দিলেন এবং শরীরের উপরেও বৃদ্ধ মহিলার পরার থাবিং চাপিয়ে দিলেন।

গভীর রাত্রে দেখা গেল যে, ঘুমিয়ে থাকা বিছানার উপরে বাঁশের তৈরী চাকু (ডাংহলা) এবং বিভিন্ন ধরণের ভোমরা (পিদুম) উড়ছে। বিভিন্ন ধরণের শব্দও শুনা গেল। মন্ত্র করে তাকে আক্রমণ করার জন্য দুই যুবক বিভিন্ন ধরণের মন্ত্র করে এসব পাঠিয়ে দিয়েছে। তবুও আক্রমণ করতে পারেনি।

যুবকটির ঘুম থেকে উঠতে অনেক দেরী হয়েছে। তখন দুই যুবক মনে মনে চিন্তা করল, বেটা মরে গেছে মনে হয়। ঘুম থেকে উঠে যুবকটি দুই যুবকের কাছে বেড়াতে গেল। দুই যুবকের তখন মনে মনে ভয় এসে গেল। কারণ যুবকটি আমাদের চেয়ে অনেক দক্ষ যুবক হবে।

তারপর তাদের আর রাত্রে ঘুম হলনা। কারণ এবার তাদের পালা। দুই যুবক তখন বিভিন্ন ধরণের জাদু-মন্ত্র করতে আরম্ভ করল।

হঠাৎ যুবকটি এসে দুই যুবকের আশেপাশে বিভিন্ন ধরণের শব্দ করল (আসাম পোএই)। তখন দুই যুবক ভয়ে আরো বেশী জাদু-মন্ত্র করতে লাগল। তবুও থামাতে পারল না।

তখন যুবকটি একটি ছাগল বাচ্চার গায়ে বিভিন্ন ধরণের রং লাগিয়ে হঠাৎ জানালার ভিতর দিয়ে ছাগল বাচ্চাটিকে ঢুকিয়ে দিল। ছাগল বাচ্চাটি ঘরের ভিতরে লাফিয়ে লাফিয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে লাগল । দুই যুবক হঠাৎ নার্ভাস হয়ে মারা গেল।


লেখক: চেই থোয়াই প্রু খেয়াং

জুমজার্নালে প্রকাশিত লেখাসমূহে তথ্যমূলক ভুল-ভ্রান্তি থেকে যেতে পারে অথবা যেকোন লেখার সাথে আপনার ভিন্নমত থাকতে পারে। আপনার মতামত এবং সঠিক তথ্য দিয়ে আপনিও লিখুন অথবা লেখা পাঠান। লেখা পাঠাতে কিংবা যেকোন ধরনের প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন - jumjournal@gmail.com এই ঠিকানায়।
RSS
Follow by Email
Facebook
Twitter

আরও কিছু লেখা

Leave a Reply