icon

মারমা রূপকথা: একটি অজগর সাপের গল্প

Jumjournal

Last updated Apr 4th, 2020 icon 704

এক দেশে এক বুড়া ও এক বুড়ী ছিল। তাদের তিন মেয়ে ছিল। এক দিন বুড়া-বুড়ী নদীর ঘাটে ময়লা জামা ধুইতেছিল। তখন তাদের খিদা লাগল।

তখন বুড়ী বুড়া-কে বলল, হে গো বুড়া, নদীর ভিতর কি যেন লাল টুকটুকে খাবার জিনিস আছে। তখন বুড়া নদীতে ডুব দিতে শুরু করল। কিন্তু তবুও পেল না সে ফল।

তখন বুড়া সূর্যের দিকে তাকাতে গিয়ে সে গাছটাকে দেখে বুড়ীকে বলল, হে গো বুড়ী, ঐতো তোমার উপর গাছটার ছায়া নদীতে পড়েছে।

বুড়ী তাকিয়ে দেখে, সে গাছে একটা অজগর সাপ। তখন বুড়ী অজগর সাপকে ডেকে বলল, জামাই বাবাজী, আমার বড় মেয়েকে যদি চাও তাহলে একটা ফল ফেল। তখন সাপটি একটা ফল ফেলে দিল।

আবার বলল, আমার মেজ মেয়েকে যদি চাও তাহলে আর একটা ফেল। তখন একটা বেশী ফেলে দিল। আবার, জামাই বাবাজী, আমার ছোট মেয়েকে যদি চাও তাহলে আরেকটা ফেল। বলার সঙ্গে সঙ্গে যতগুলো ফল আছে সবগুলো ফেলে দিল। তখন বুড়া-বুড়ী খেয়ে চলে গেল বাড়ীতে।

বাড়ীতে গিয়ে ভাত খেতে যখন বসল, তখন পোকা কামড়ানোর শব্দ হলো। প্রথম মেয়েটি যখন গেল তখন অজগর সাপটিকে দেখে বলল, মা, ঐখানে সাপ একটা। দ্বিতীয় মেয়ে গেল, সেও ঠিক সেভাবে বলল।

তখন তৃতীয় মেয়ে গেল, তারও ফিরে আসতে হলো। তখন মা রাগে হাত দিল আর অজগর সাপটি তার হাতে পেঁচ দিল জোরে। তখন বলল, প্রথম মেয়েকে চাইলে একটু খুল পেঁচ। তখন পেঁচ একটু খুলল।

আবার বলল, দ্বিতীয় মেয়েকে চাইলে আরেকটু খুল। ছোট মেয়েকে চাইলে একটু খুল। তখন অজগর সাপটি হাত থেকে পড়ে গেলো। তখন তাদের বিয়ে হলো সাপের সাথে।

প্রতিদিন রাত হলে রাজকুমার রূপ নিয়ে সাপ বাঁশি বাজাতো। তখন তার স্ত্রী সবাই শুনতো। একদিন সে যখন রাজকুমার সেজে বাঁশি বাজাচ্ছিল, তখন স্ত্রীরা এসে সাপের চামড়াটাকে লুকিয়ে ফেলল। তখন মানুষরূপে থাকতে হলো।

কয়েকদিন পর এক বুড়া তা শুনে অজগর সাপ খুঁজতে লাগল। তখন বুড়া একটা অজগর পেল । সাপের সাথে তার মেয়ের বিয়ে দিয়ে দিল। ঘুমাবার সময় স্ত্রীকে খেয়ে অজগর এক জায়গায় লুকিয়ে থাকল। সকাল হলে তার মেয়েকে ডেকে দেখে যে, সে নাই।

তখন দুপুর হলো । গ্রামের এক মেয়ে তাদের বাড়ীতে বেড়াতে আসল। তখন দেখে যে, একটি সাপ। বুড়া বলল, সাপকে যে কাটতে পারবে তাকে পুরস্কার দেওয়া হবে। তখন সে অজগর রাজকুমার বলল, আমি পারবো।

তাকে কাটতে হবে আর যত রক্ত তার গায়ে লাগে তাতে ছাই দিয়ে দিতে হবে। এভাবে সাপকে কেটে ফেলল । কিন্তু পায়ের মধ্যে একবিন্দু রক্ত রয়ে গেল। তখন আবার আস্ত এক সাপ হয়ে বনে চলে গেল।

তখন তার স্ত্রীদের কান্না করতে করতে মারা যাবার মত অবস্থা হলো। আবার খুঁজে পেলে আবার তাদের মিলন ঘটল। কিন্তু ঐ মেয়ের মা-বাবা সবাই কান্না করতে লাগল। শুধু তাদের মেয়ের জন্য।


লেখকঃ উ শৈ সিং

জুমজার্নালে প্রকাশিত লেখাসমূহে তথ্যমূলক ভুল-ভ্রান্তি থেকে যেতে পারে অথবা যেকোন লেখার সাথে আপনার ভিন্নমত থাকতে পারে। আপনার মতামত এবং সঠিক তথ্য দিয়ে আপনিও লিখুন অথবা লেখা পাঠান। লেখা পাঠাতে কিংবা যেকোন ধরনের প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন - jumjournal@gmail.com এই ঠিকানায়।

আরও কিছু লেখা

Jumjournal

Administrator

Follow Jumjournal

Leave a Reply